41428

জয়ের রেকর্ড মেসির

স্পোর্টস ডেস্ক।। লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেসের গোলে দুর্দান্ত জয়ে লিগ শিরোপা ধরে রাখার পথ আরো সহজ হলো বার্সেলোনার। এ জয়ে রেকর্ড হয়ে গেল মেসিরও। শনিবার রাতে ক্যাম্প ন্যুয়ে ২-০ গোলে জিতে শিরোপাধারীরা। নভেম্বরে আতলেতিকোর মাঠে দুদলের মধ্যে লিগের প্রথম পর্বের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছিল। প্রথমার্ধে দিয়েগো কস্তাকে হারিয়ে রক্ষণাত্মক হয়ে পড়া আতলেতিকো মাদ্রিদকে প্রচণ্ড চাপে রাখে বার্সা। বিরতির পর লড়াই অনেকটা হয়ে ওঠে লিওনেল মেসি বনাম ইয়ান ওবলাক। শেষ পর্যন্ত অবশ্য দুর্বার প্রতিপক্ষকে আটকাতে পারেননি ম্যাচ জুড়ে দারুণ খেলা এই গোলরক্ষক।

৮৫তম মিনিটে আলবার পাস ধরে খানিকটা এগিয়ে ডি-বক্সের বাইরে থেকে ডান পায়ের বাঁকানো শটে জাল খুঁজে নেন সুয়ারেস। আসরে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতার এটি ২০তম গোল। পরের মিনিটেই ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মেসি। ডি-বক্সে আর্জেন্টিনা অধিনায়ককে বাধা দিতে গিয়ে পড়ে যান ডিফেন্ডার হোসে হিমেনেস। সেই সুযোগে বিনা বাধা আরো কয়েক পা আড়াআড়ি গিয়ে বাঁ পায়ের নিচু শটে আসরে ৩৩তম গোলটি করেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে তার গোল হলো ৪৩টি।

৩১ ম্যাচে ২২ জয় সাত ড্রয়ে বার্সেলোনার পয়েন্ট হলো ৭৩। দুইয়ে থাকা দিয়েগো সিমেওনের দলের পয়েন্ট ৬২। দিনের প্রথম ম্যাচে করিম বেনজেমার জোড়া গোলে এইবারকে ২-১ ব্যবধানে হারানো রিয়াল মাদ্রিদ ৬০ পয়েন্ট নিয়ে আছে তৃতীয় স্থানে। এদিকে বার্সার এ জয়ে রেকর্ড হয়ে গেল মেসিরও। লা লিগায় নিজের ৩৩৫তম জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক।এর আগে এস্পানিওলকে হারিয়ে লা লিগায় রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক অধিনায়ক ইকের কাসিয়াসের সর্বোচ্চ জয়ের রেকর্ড ছুঁয়েছিলেন লিওনেল মেসি। ভিয়ারিয়ালের সঙ্গে দলের ড্রয়ে বেড়েছিল অপেক্ষা। আতলেতিকো মাদ্রিদকে হারিয়ে ঘরের মাঠে রেকর্ডটা নিজের করে নিয়েছেন বার্সেলোনা ফরোয়ার্ড।

এস্পানিওলের বিপক্ষে ম্যাচের পরই মেসিকে আগাম অভিনন্দন জানিয়ে রেখেছিলেন কাসিয়াস। রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক অধিনায়ক বলেছিলেন, রেকর্ডটা রিয়াল মাদ্রিদের একজন খেলোয়াড় স্পর্শ করলে আমি বেশি পছন্দ করতাম। কিন্তু এ ধরনের রেকর্ড গড়াই হয় ভাঙার জন্য। আর সে সবসময় অসাধারণ। স্বীকৃতিটা তার (মেসির) প্রাপ্য।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *