আজ জাগবেন ঘুমন্ত গেইল

ক্রীড়া প্রতিবেদক
আজ হারলে বাদ, জিতলে ফাইনাল খেলবে রাংপুর রাইডার্স। তাই আজ নিশ্চিত বিস্ফোরণ ঘটাবে—ক্রিস গেইল। যদিও গেইল। ব্যাটিংয়ে নামলেই এমন ভবিষ্যদ্বাণী কত যে শোনা গেল এ বিপিএলে! কিন্তু গেইল আর বিস্ফোরণ ঘটাতে পারেন না। দু-একটি ম্যাচে আশার প্রদীপ অবশ্য জ্বেলেছেন, কিন্তু সেটি নিভে যেতেও সময় লাগেনি। টি-টোয়েন্টির সবচেয়ে বড় নাম, পারিশ্রমিকটাও তাঁর আকাশছোঁয়া, অথচ রংপুর রাইডার্স এখনো পর্যন্ত ক্রিস গেইলের কাছে সেভাবে সেবাটা পায়নি।

১১ ম্যাচে ১৮.৮০ গড়ে ১ ফিফটিতে ১৮৮ রান—গেইল নিজেও হয়তো অস্বস্তি বোধ করবেন এই পরিসংখ্যান দেখে! গত বিপিএলেও শুরুর দিকে জ্যামাইকান ওপেনার ছিলেন নিষ্প্রভ। গেইল-ঝড় উঠেছিল শেষ চার থেকে। কাল প্রথম কোয়ালিফায়ারেও ৪৬ রান করে দুর্দান্ত কিছুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, কিন্তু পারেননি ইনিংসটা লম্বা করতে। মাশরাফি বিন মুর্তজার আশা, ঘুমন্ত গেইল জেগে উঠবেন আগামীকালের ম্যাচে, ‘এখনো টুর্নামেন্টে আমরা ভালোভাবেই আছি। এখনো একটা ম্যাচ আছে, যেটা আমাদের কাছে আবারও সেমিফাইনাল। আমরা প্রত্যাশা করি বড় ম্যাচে সে জ্বলে উঠবে। এই সংস্করণে ওর দিকে সবার চোখ থাকে। আমরাও ব্যতিক্রম নই। তাকিয়ে আছি ওর দিকে।’

হাসি-রসিকতা করতে পছন্দ করেন। মাঠে তাঁর উদ্‌যাপনেও থাকে বিনোদনের অনেক উপাদান। কিন্তু উদ্‌যাপনের সুযোগই হচ্ছে না গেইলের। রংপুরের ক্যারিবীয় ওপেনার অবশ্য মনে করিয়ে দিতে চাইলেন, ছন্দে না থাকলেও বড় খেলোয়াড়েরা পারেন কঠিন পরিস্থিতিতে ঘুরে দাঁড়াতে, ‘না, ভালো আছি। দল আমার কাছে অনেক প্রত্যাশা করে। এখনো আমি ভালো অবস্থায় আছি। গত বছর আমরাই সর্বোচ্চ স্কোর গড়েছি। সবারই উত্থান-পতন থাকে । আমাদের মতো অভিজ্ঞতাসম্পন্ন খেলোয়াড়েরা জ্বলে ওঠে সময়মতো। এ কারণেই আমরা বড় খেলোয়াড় আর সফল।’

গেইল হতাশ করলেও চমকে দিয়েছেন রাইলি রুশো। বাংলাদেশে, বিশেষ করে মিরপুরের নিচু-মন্থর উইকেটে দক্ষিণ আফ্রিকার একজন ব্যাটসম্যান ধারাবাহিক দুর্দান্ত খেলছেন, অবাক হওয়ার মতোই। রংপুরও হয়তো এতটা আশা করেনি তাঁর কাছ থেকে। ১৩ ম্যাচে ৭৯.৭১ গড়ে ৫৫৮ রান—রংপুরের এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানের অসাধারণ ব্যাটিং দেখে যদিও অবাক হচ্ছেন না রংপুর অধিনায়ক মাশরাফি, ‘আমি অবাক নই। এই উইকেটে সে রান করছে, সেটা আমাদের জন্য ভালো। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে যখন সে খেলেছে ওপরের দিকেই খেলেছে। এখন আর দক্ষিণ আফ্রিকা দলে খেলে না। খেললে হয়তো দলে নিয়মিত থাকত। এখানে অবাক হওয়ার কিছু নেই। খুব ভালো লাগছে যে সে এখানে মানিয়ে নিয়ে রান করছে। আমাদের স্থানীয় খেলোয়াড়েরা এটা দেখে শিখতে পারে।’

আগের সংবাদ
পরের সংবাদ