ভিন্ন ভাষার জনপ্রিয় ৬ গান

বিনোদন.কম।।
ইংরেজি বা বহুল প্রচলিত কোনো ভাষার গান নয়। তবে চিত্তাকর্ষক সুর আর ছন্দে নাচিয়ে চলেছে গোটা বিশ্ব। দেশ, ভাষা ও সংস্কৃতির বাধা টপকে ইতিমধ্যে সর্বকালের সেরা জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে জায়গা করে নিয়েছে। উৎসবের আনন্দে বাড়তি মাত্রা যোগ করা এই গানগুলো শুনলে সত্যিই মনে হয় সংগীতের মাঝে কোনো কাঁটাতার নেই। চলুন দেখে নেই-

দেসপাসিত : এটি মূলত একটি স্প্যানিশ ভাষার গান। গ্র্যামির মতো বড় কোনো পুরস্কার না জিতলেও মনোনীত হয়েছে। দেশে-বিদেশে বেশ কিছু পুরস্কারও জিতেছে। ২০১৭ সালের সেরা জনপ্রিয় গান নির্বাচিত হওয়ার পাশাপাশি আয় করেছে বড় অঙ্কের অর্থ। স্পেনের লোকজ এবং শহুরে সংগীতের সংমিশ্রণে গানটি তৈরি হয়েছে। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হইচই ফেলে দিয়েছে গানটি।

হোয়াই দিস কলাভেরি ডি : মূলত একটি ‘তাংলিশ’ গান অর্থাৎ তামিল এবং আংশিক ইংরেজি ভাষার সংমিশ্রণে তৈরি হয়েছে গানটি। প্রকাশিত হয় ২০১১ সালের ১৬ নভেম্বর। আর সে থেকে ইন্টারনেটের কল্যাণে গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে যায়। তামিল অভিনেতা ও গায়ক ধানুশের গাওয়া এই গানটি ‘থ্রী’ নামক একটি ছবিতে ব্যাবহার করা হয়েছে। বেশকিছু মনোনয়নসহ ফিল্মফেয়ার পুরস্কার জিতেছে এই গান।

ওয়াকা ওয়াকা : আফ্রিকার ব্যান্ড ‘ফ্রেশলি গ্রাউন্ড’ এর সম্পাদনায় গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন ল্যাটিন গায়িকা শাকিরা। ২০১০ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে গানটি তৈরি হয়েছে। গানটি প্রকাশের সংগে সঙ্গেই সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। অস্ট্রিয়া, জার্মানি, বেলজিয়াম ফ্রান্স, স্পেন, ইতালি, সুইজারল্যান্ডের মতো অসংখ্য দেশে সেরার তালিকায় এক নম্বরে ছিল গানটি।

ব্রাজিল লা লা লা : নব্বইয়ের দশকের অত্যন্ত জনপ্রিয় গান এটি। একসময় এই গান ছিল উৎসবের প্রাণ। মূলত ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় উৎসব সাম্বাকে কেন্দ্র করেই গানটি তৈরি হয়েছে। পপ ব্যান্ড ‘ভেঙ্গাবয়েজ’ এর ‘দ্য পার্টি অ্যালবাম’ এর অন্যতম চিত্তাকর্ষক গান এটি। ১৯৯৯ সালে গানটি প্রকাশিত হওয়ার পর সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে।

দিদি : ১৯৯২ সালে প্রকাশিত হওয়া এই গানটি এতটাই জনপ্রিয় হয় যে, ভারতীয় ছবি ‘হাদ কার দি আপনে’ ছবিতে গানটি নকল করা হয়েছে। গানটি মূলত আলজেরিয় সংগীতশিল্পী খালিদের গাওয়া গান। মধ্যপ্রাচ্যের সীমানা ছাড়িয়ে গানটি সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। ফ্রান্সে সেরার তালিকায় দীর্ঘদিন জায়গা করে নিয়েছিল গানটি। এছাড়া সুইজারল্যান্ড, নেদারল্যান্ড, মিশর, বেলজিয়াম, সৌদি আরবে সেরা গানের তালিকায় জায়গা করে নেয়।

গ্যাংনাম স্টাইল : আজকাল এই গান ছাড়া উৎসব পূর্ণতা পায় না। গানটি গেয়েছেন দক্ষিন কোরীয় সংগীতশিল্পী ‘সাই’। ২০১২ সালের জুলাইয়ের ১৫ তারিখ গানটি প্রকাশিত হয়। এরপর নেটিজনদের হাত ধরে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে গানটি। ‘গ্যাংনাম স্টাইল’ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রথম ব্যবসাসফল গান যেটি ইউটিউবে ১ বিলিয়ন মানুষ দেখেছে।

উৎস : বাংলা ইনসাইডার

adv






আগের সংবাদ
পরের সংবাদ