কলকাতার নায়িকাদের একমাত্র ভরসা সুপারষ্টার শাকিব খান

বিনোদন.কম।।
শাকিব খান। বাংলা চলচ্চিত্রের সুপাষ্টার। তার জনপ্রিয়তা এখন দুই বাংলায়। উত্তম-সৌমিত্র-মিঠুনদের পর প্রসেনজিতে যখন অস্থির কলকাতার চলচ্চিত্র দর্শক, তখন আসলেন জিৎ, দেব, সোহম, অঙ্কুশ, আবির। কিন্তু তামিল আর বলিউডের ছবির নকল করায় তাদের ছবি থেকেও মুখ ফিরিয়ে নিলেন দর্শক। একটা পরিবর্তন চাইছিল টালিগঞ্জ।

আর সেই পরির্বতন নিয়ে আসলেন শাকিব খান। কথিত বাণিজ্যিক সিনেমা নির্মাণ কমে যাওয়ায় কমে গেল অঙ্কুশ, ওম, সোহমদের মতো কথিত অভিনেতার চাদিহা। ফলে নায়িকাদের নজরে রয়েছে বাংলাদেশের সিনেমার বাজার। আর সেই বাজারে তাদের তুরুপের তাস সেরা নায়ক শাকিব খান। এরই মধ্যে শ্রাবন্তী ও শুভশ্রী প্রমাণ পেয়েছেন শাকিবের নায়িকা হয়ে বাংলাদেশের বাজারে তারা সফল হতে পারবেন। আর সেই প্রমাণের অপেক্ষায় রয়েছে সায়ন্তিকা ও নুসরাত জাহান।

২০১৬ সালে এসকে মুভিজ ও বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়ার হাত ধরে জুটি বাঁধেন শাকিব খান ও শ্রাবন্তী। ছবির নাম ‘শিকারী’। এ ছবিটি মুক্তি পেলে বাংলাদেশ দারুণ ব্যবসা করতে সমর্থ হয়। এর পরের বছর একই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ব্যানারে জুটি বাঁধেন শাকিব খান ও শুভশ্রী। তাদের ছবিটির নাম ছিলো ‘নবাব’। গেল বছরের কোরবানী ঈদে মুক্তি পাওয়া ছবিটি নবাবী করেছে সিনেমা হলে।
তবে গেল বছর মুক্তি পাওয়া ‘সত্তা’ নামের ছবিটিতে কলকাতার পাওলি দামের সঙ্গে জুটি বেঁধে সুবিধা করতে পারেননি শাকিব। কিন্তু নিজের ব্যতিক্রমী অভিনয়ের স্বাক্ষর তিনি রেখেছেন।

এবার অপেক্ষা রয়েছে শাকিবকে নিয়ে সায়ন্তিকা ও নুসরাত জাহানের ছবি ‘মাস্ক’র মুক্তি। কলকাতার সবেচেয়ে বড় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের ব্যানারে একক প্রযোজনাতেই ছবিটি নির্মিত হবে বাংলাদেশে। সাফটায় ছবিটি মুক্তি পাবে বাংলাদেশেও। এ ছবিটি নিয়ে আশাবাদী কলকাতার দুই নায়িকা। তারাও বুক বেঁধেছেন শ্রাবন্তী ও শুভশ্রীর মতোই সফল হবেন বাংলাদেশে, সেই আশাতে।

এর বাইরে শাকিব আরও দুটি সিনেমাতে কাজ করছেন শুভশ্রী ও সায়ন্তিকাকে নিয়ে। জয়দীপ মুখার্জি পরিচালিত ‘চালবাজে’ শাকিবের সঙ্গে রোমান্টিক নায়িকা হিসেবে দেখা যাবে শুভশ্রীকে। আর সায়ন্তিকার সঙ্গে শাকিবকে নিয়ে কলকাতার পরিচালক রাজিব নতুন একটি ছবির উদ্যোগ নিয়েছিলেন গতবছর। তবে এর কোনো আপডেট আর মেলেনি।

বলে রাখা ভালো কলকাতার নায়িকা হিসেবে শাকিবের বিপরীতে সর্বপ্রথম কাজ করেন স্বস্তিকা মুখার্জি। এফ আই মানিক পরিচালিত ছবিটি বাংলাদেশে মুক্তি পায় ‘সবার উপরে তুমি’ নামে ১৩ নভেম্বর ২০০৯ সালে। আর ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১০ সালে কলকাতায় মুক্তি পায় ‘আমার ভাই আমার বোন’ নাম নিয়ে। ছবিটি নির্মিত হয়েছিলো যৌথ প্রযোজনায়।

এদিকে চলচ্চিত্রপাড়ার আলোচনা, কলকাতায় পরিবর্তনের সঙ্গে তাল না মেলাতে পেরে বেকার হতে যাওয়া বেশ ক’জন নায়িকাদের টার্গেট এখন বাংলাদেশের সিনেমা বাজার। এখানেই তারা জমিয়ে তুলতে চাইছেন নিজেদের ক্যারিয়ার। অভিষেকের জন্য তারা বেছে নিচ্ছেন শাকিব খানকে। এজন্য তারা নিয়মিতই ধরনা দিচ্ছেন কলকাতার বিভিন্ন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানে। কারো কারো টার্গেটে রয়েছে বাংলাদেশের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়াও। কেননা, ওই প্রতিষ্ঠানটির হাত ধরেই বাংলাদেশে শুভযাত্রা করেছেন শ্রাবন্তী ও শুভশ্রী। নায়িকাদের পাশাপাশি জিৎ, ওম, অঙ্কুশের মতো নায়কেরাও এই প্রতিষ্ঠানের প্রযোজনায় বাংলাদেশের সিনেমা হলে হাজির হয়েছেন।

এইসব নায়িকাদের জন্য শাপে বর হয়েছে শাকিবের অতি মাত্রায় কলকাতা প্রীতি। নানা কারণেই নিজের ইন্ডাস্ট্রির উপর বিরক্ত বা আশা হারিয়েছেন শাকিব খান। তিনি এখন পুরোদমেই কলকাতামুখী। বাংলাদেশি সিনেমা নিয়ে খুব একটা আগ্রহ দেখা যায় না। নতুন ছবির প্রস্তাব পেলেই কলকাতার নায়িকাদের নেয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন পরিচালকদের। বাংলাদেশের সংগীত পরিচালকের প্রতিও আস্থা নেই তার। সম্প্রতি বাংলাদেশি সংগীত পরিচালকদের বাদ দিয়ে কলকাতার মানুষকে দিয়ে গান করানো নিয়ে বেশ সমালোচিত হয়েছেন শাকিব। শুধু তাই নয়, শুটিং না থাকলেও পড়ে থাকেন কলকাতায়। নেচে-গেয়ে বেড়ান পশ্চিমবঙ্গের স্টে শোগুলোতে। সেখানে তিনি সরাসরি কলকাতায় দর্শক তৈরিরও চেষ্টা করছেন।

আগের সংবাদ
পরের সংবাদ